1. গাংনীতে ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের উদ্দেশ্য সহিংসতা।
নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী কাল ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) অংশগ্রহন না করলেও সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছে বিএনপি সমর্থকরা। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারনায় বাধা, নির্বাচনী অস্থায়ী নির্বাচনী অফিসে হামলা ও অগ্নিসংযোগ সহ বিভিন্ন সহিংসতার ঘটনা ঘটাচ্ছে সেসব সতন্ত্র প্রার্থীরা। ২য় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পূর্ব মুহূর্তে গাংনী উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিটে ছাত্রদলের কমিটি গঠন সহিংসতার উদ্দেশ্য বলে মনে করছেন ছাত্রলীগ নেতারা। নতুন করে নির্বাচন বানচালের উদ্দেশ্য এ পরিকল্পনা। গতকাল মঙ্গলবার রাতে গাংনী উপজেলার ৭ টি ইউনিটে ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়। ইউনিটগুলোর মধ্যে ৬ টি ইউনিয়ন এবং ১ টি কলেজ। মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সদস্য রকিবুল ইসলাম নয়ন বলেন, নির্বাচনের মাঠে ছাত্রদলের কমিটি দেওয়ার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে নির্বাচনে সহিংসতা সৃষ্টি করা। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে এমনটা ভেবে ছাত্রদলের কমিটি দিয়েছে কিন্তু ছাত্রলীগ মাঠে সবসময় ছিল এবং থাকবে ছাত্রদলের সমস্ত অপকর্মের জবাব ছাত্রলীগ মাঠে দিবে। এ বিষয়ে গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবাল অনিক বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যখন উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় ঠিক তখনই বিএনপি জামাতের মদদপুষ্ট ছাত্রদল বারবার স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি প্রয়োগ করছে। তিনি আরো বলেন, আগামী কাল ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এ নির্বাচন কে নানা ভাবে প্রশ্নবিদ্ধ ও বানচাল করতে ছাত্রদলের এই আকস্মিক কমিটি গঠন। কিন্তু, নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হবে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীরা জনগণের ভোটে বিজয়ী হবে।