সম্পাদকীয়ঃ দুঃখ, দুর্দশা আর হতাশার মধ্য দিয়ে শেষ হলো ২০২০ সাল। করোনায় জর্জরিত পুরো বিশ্ব লাশের পাহাড় দেখেছে এই বছরটিতে। লকডাউনে লকডাউনে থমকে গেছে বিশ্ব অর্থনীতি। বিশ্ব অর্থনীতিতে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বিশ সালে। ২০২০ মানব ইতিহাসে এক ভয়ানক বছরের নাম হয়ে থাকবে। অনেকেই মনে করেন, জীবন ও জীবিকার ওপর আঘাতের যে চিত্র বছরজুড়ে মানুষ দেখেছে, গত ১০০ বছরেও তা দেখা যায়নি। ২০২০ সালে কোভিড-১৯ মহামারিতে লাখ লাখ মানুষ এরই মধ্যে মারা গেছেন। সেই সঙ্গে কয়েক কোটির বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এবং অর্থনৈতিক খাতে ১০ ট্রিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে। কোটি কোটি মানুষ চাকরি হারিয়েছেন। ১০০ কোটির বেশি শিশু করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্কুলে যেতে পারেনি। অভিসপ্ত এ করোনায় হারিয়েছে বহু বিশিষ্ট ব্যাক্তিকে। যাদের কোনদিন ফিরে পাবো না। অভিসপ্ত এ করোনায় আমাদের ছেড়ে চলে গেছে বাংলাদেশের ৭ হাজার ৫৩১ জন। দেশে আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ১২ হাজার ৪৯৬ মানুষ। বিশ্বব্যাপী করোনার এ রূপ ভয়াবহ আরো বহু গুনে। ২০২০ সালে বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮ কোটি ৩০ লাখ ৬০ হাজার ২৭৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৮ লাখ ১২ হাজার ৪৬ জনের। এছাড়াও অন্যায়-অপরাধ ও বিভিন্ন বেদনা দায়ক ঘটনা ঘটে গেছে ২০২০ সালে। অনেক ভালো খবর থাকলেও বিশ্ববাসীর মনে প্রভাব ফেলতে পারেনি ২০২০। তবে এবছর আমাদের দেশের জন্য অর্থনীতিতে যে সুসংবাদ ছিল তা অনেকটাই স্বস্তি দেয়। স্বপ্নের পদ্মা সেতু সম্পূর্ন দৃশ্যমান হওয়টাও দেশবাসীর কাছে বড় পাওয়া। তবুও জীবন ও কর্মগ্রাসী করোনায় ফিকে ২০২০। তবে সব দুঃখ আর মলিনতা মুছে গিয়ে ২১ আসুক আমাদের জীবনে সুখের বার্তা হয়ে। ভয়ংকর মহামারি কাটিয়ে ২১ হোক আমাদের সুখের বছর। ২০২১ শান্তি বয়ে আনুক সকল মানুষের মনে। বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে দিক স্বস্তির নিশ্বাস। সকলকে মেহেরপুর টিভির পক্ষ থেকে খ্রিস্টীয় নববর্ষের শুভকামনা। সুন্দর ও সুখের হোক ২০২১।