মোঃ বিপ্লব রেজাঃ মেহেরপুর সদর উপজেলার চাঁদবিল গ্রামের ফয়জদ্দিনের এর ছেলে সোহেল রানা (১৮)। সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হয়ে ভর্তি আছেন জাতীয় অর্থোপেডিক ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে। তবে ছেলের চিকিৎসা নিয়ে চিন্তার ভাজ সোহেল রানার পিতা দিনমজুর ফয়জুদ্দিনের কপালে। মেহেরপুর সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র সোহেল রানা। দিনমজুরীর কাজ করে কোন রকমে সংসারের খরচ চালান সোহেল রানার পিতা ফয়জুদ্দিন। আহত ছেলের চিকিৎসায় খরচ কেমন হবে জানেননা তিনি। তবে তার ধারণা খরচ হতে পারে ২ থেকে ৩ লক্ষ টাকা। আর এই খরচ বহন করা তার পক্ষে অসম্ভব।চিকিৎসা না হলে চিরদিনের জন্য পঙ্গু হতে পারেন সোহেল রানা। সোহেল রানার পিতা জানান কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি তার ছেলের চিকিৎসার দ্বায়িত্ব নেয়। তাহলে হয়তো আবার শিক্ষাঙ্গনে ফিরে গিয়ে পরিবার ও সমাজে আলো ছড়াতে পারবে। নতুন করে সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়ার স্বপ্ন দেখবে। ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালের ৭ম তলায় ২২০ নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে সোহেল রানা। যদি কোন সহৃদয় ব্যক্তি প্রয়োজন মনে করেন তাহলে অবশ্যই ০১৯৩৫ ৩৬৯ ০৯৭ এই নম্বরে সরাসরি যোগাযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন সোহেল রানার পিতা। আপনাদের একটু সহযোগীতা ও দোয়া পঙ্গুত্ব থেকে বাঁচাতে পারেসোহেল রানা। গত ৯ নভেম্বর রাতে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন সোহেল রানা। তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে জাতীয় অর্থোপেডিক ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে রেফার্ড করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।